দিনে ২টি খেজুর খান সুস্থ থাকুন

 খেজুর খান সুস্থ থাকুন

খেজুর খান সুস্থ থাকুন 

খেজুরের উপকারিতা কোথা থেকে শুরু করব বুজতে পারছি না। এই শক্তিবর্ধক ফল খেতে যেমন সুস্বাদু তেমনি এর পুষ্টিগুন অতুলনীয়। আমাদের দেশে রমযান মাসে সাধারনত খেজুর বেশী দেখা গেলেও সারা বছরই পাওয়া যায়।

আপনি হয়তো রমযান মাসে বেশী খেজুর খেয়ে থাকবেন বা কিছু উপলক্ষে মাঝে মাঝে খেজুর খেতে পারেন। তবে আপনি যদি প্রতিদিন ২টি খেজুর খাওয়ার অভ্যাস করতে পারেন তাহলে আপনার শরীরের জন্য খেজুর এক মহা উপকার বয়ে আনবে।  

১০০ গ্রাম পরিমান খেজুরে যেসব পুষ্টি থাকে তার লিস্ট-

  • ক্যালোরি: ২৭৭
  • কার্বস: ৭৫ গ্রাম
  • ফাইবার: ৭ গ্রাম
  • প্রোটিন: ২ গ্রাম
  • পটাসিয়াম: আরডিআই এর ২০%
  • ম্যাগনেসিয়াম: আরডিআইয়ের ১৪%
  • ম্যাঙ্গানিজ: আরডিআইয়ের ১৫%
  • আয়রন: আরডিআইয়ের ৫%
  • ভিটামিন বি ৬: আরডিআই এর ১২%

হার্টের স্বাস্থ্য উন্নতির জন্য খেজুর

খেজুরের অ্যান্টিঅক্সিড্যান্টগুলো এথেরোস্ক্লেরোসিস প্রতিরোধ করে, যা মূলত ধমনীগুলি শক্ত হয়ে যাওয়া এবং ফলকের সাহায্যে আটকে থাকে।

এই অ্যান্টিঅক্সিড্যান্টগুলি ধমনী কোষ থেকে কোলেস্টেরল অপসারণকে সাহায্য করে।

খেজুরে থাকা Isoflavones আইসোফ্লাভোনস (কোনও ফলের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ) থাকে যা কার্ডিওভাসকুলার রোগের ঝুঁকি কমাতে সাহাযত করে।

খেজুরে ফাইবার (১০০ গ্রাম খেজুরে ৭ গ্রাম) থাকার কারনে করোনারি হৃদরোগের ঝুঁকি কমায়।

মস্তিষ্ক সচল রাখতে খেজুর

খেজুরের যত উপকারিতা আছে তার মধ্যে অন্যতম এটি।

মস্তিষ্ক সচল রাখতে খেজুর খেতে পারেন কেননা এই ফল মস্তিষ্ককে প্রাণবন্ত রাখে।

এছাড়া খেজুর  আপনার ক্লান্ত শরীরে তাৎক্ষণিক যথেষ্ট পরিমাণ শক্তির জোগান দিতে পারে। আপনি পড়ছেন health benefits of dates in Bengali language.

ত্বকের উন্নতিতে খেজুর

খেজুরে থাকা ভিটামিন ত্বকের স্থিতিস্থাপকতা উন্নত করে এবং ত্বক মসৃণ রাখে। নিয়মিত খেজুর খেলে আপনাকে আরও কম বয়সী দেখাবে।

এই  শক্তিবর্ধক ফল আপনার শরীরে মেলানিন জমে যাওয়া রোধ করতে সহায়তা করে, যার ফলস্বরূপ বার্ধক্যের প্রভাবগুলো মোকাবেলায় সহায়তা করে।

শুধু তাই নয়, ব্রণ কমাতে এবং অন্ত্রের স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটাতে খেজুর খেতে পারেন।

রক্তে সুগার নিয়ন্ত্রনে খেজুর

যেহেতু খেজুরে ফাইবারের পরিমাণ বেশি এবং গ্লাইসেমিক সূচক কম থাকে তাই খেজুর একটি নির্ভুল খাবার। উচ্চ রক্ত চাপ আক্রান্ত ব্যক্তিদের জন্য এটি কার্যকর ফল। তাছাড়া খেজুরের গুনাগুন রেটিনার স্বাস্থ্যকে ভালো রাখে।

আরো জেনে নিন- গাজরের উপকারিতা

গর্ভবতী মহিলাদের জন্য খেজুর

ক্ষুধা নিবারক, ভেষজ গুণ সম্পন্ন খেজুর গর্ভবতী মহিলাদের জন্য সেরা ফল। বাচ্চা হওয়ার ৪ সপ্তাহ আগ থেকে প্রতিদিন পাঁচ থেকে ছয়টি খেজুর খেলে গর্ভবতী মহিলাদের স্বাস্থ্য ভাল রাখে।

এছাড়া খেজুরের গুনাগুন – কোষ্ঠকাঠিন্য নিরাময়ে এই ফল খুব কার্যকর। মানসিক শক্তি বাড়াতে, হজমশক্তি বৃদ্ধিতে, রোগ প্রতিরোধ খেজুর খাওয়া চালিয়ে যান।

শেষ কথা

আপনার ডায়েটে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য খেজুর খুবই স্বাস্থ্যকর ফল। খেজুরে থাকা পুষ্টি উপাদান ফাইবার এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমূহের পরিমাণ বেশি থাকে তাই ভাল হজম হয় এবং বিভিন্ন রোগের ঝুঁকি হ্রাস করতে পারে।

Post a Comment

Previous Post Next Post