স্তন ক্যান্সার কেন হয় | ব্রেস্ট ক্যান্সারের লক্ষণ কি কি

[ad_1]


স্তন ক্যান্সার কেন হয়, ব্রেস্ট চুলকালে কি হয়, ব্রেস্ট ক্যান্সার চিকিৎসা খরচ, ব্রেস্ট ক্যান্সার প্রতিরোধের
উপায়, ব্রেস্ট
টিউমার অপারেশন খরচ, ব্রেস্ট ক্যান্সারের লক্ষণ ও চিকিৎসা, ব্রেস্ট ইনফেকশন কি,
ব্রেস্টে ব্যথা হওয়ার কারণ,
ব্রেস্ট থেকে পানি বের হওয়ার কারণ, ইত্যাদি নানা ধরনের প্রশ্নের
উত্তরআপনারা আমাদের কাছে জানতে
চেয়েছেন।




আসুন আজ আলোচনা করি স্তন ক্যান্সার কেন হয় ও স্তন ক্যান্সারের লক্ষণ কি কি?



সারা পৃথিবীতেই নারীদের সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয় স্তন ক্যান্সারে। যেসব মহিলাদের বয়স ৫০ এর বেশি তাদের স্তন ক্যান্সার হওয়ার মাত্রা সবচেয়ে বেশি। গবেষণায় দেখা গেছে স্তন ক্যান্সারে আক্রান্তদের ৮০ ভাগের বয়স ৫০ বা তাঁর বেশি। আমরা সাধারণত জানি যে স্তন ক্যান্সারে শুধুমাত্র মেয়েরাই আক্রান্ত হয়ে থাকেন কিন্তু এই ধারনাটি সম্পূর্ণ ভুল। স্তন ক্যান্সারে ছেলেদেরও আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা আছে। তবে বিশ্বে মহিলারাই সবচেয়ে বেশি এই ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে থাকেন।





পুরুষদের এই স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা অনেক কম। প্রতিবছর আমেরিকাতে ৫০ হাজারেরও বেশি মহিলা স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে থাকেন সেই তুলনায় পুরুষদের আক্রান্ত হওয়ার হার মাত্র ৬৫ জন। পরিবারের কারো যদি আগে স্তন ক্যান্সার হয়ে থাকে, সেই ফ্যামিলির প্রায় সবাই এই ক্যান্সারে আক্রান্ত হতে পারেন। এর সম্ভাবনা প্রায় ৯৫ পারসেন্ট।


স্তন ক্যান্সার কেন হয়




তবে প্রাথমিক অবস্থায় এই ক্যান্সার ধরা পরলে, চিকিৎসার মাধ্যমে শতভাগ মুক্তি লাভ করা যায়।


কিভাবে বুঝবেন আপনার স্তন ক্যান্সার হয়েছে


প্রাথমিক অবস্থায় এই ক্যান্সার অনেক ক্ষুদ্র হয়ে থাকে। তাই কেউ যদি আক্রান্ত হয়েও থাকেন তা বুঝা সম্ভব নয়।



  • তবে বেশিরভাগ স্তন ক্যান্সার রোগীর স্তনে চাকা অবয়ব দেখা যায়।

  • আবার অনেকের স্তনের বোটা বা তার চারপাশের কালো অংশে চুলকানি ভাব দেখা যায়।

  • মাঝে মাঝে স্তনের চামড়ার কালার চেঞ্জ হয়ে থাকে।

  • স্তনের বোটা থেকে অনেকের পানি বা এক ধরনের তরল পদার্থ বের হয়ে থাকে। এই তরল পদার্থের রং সাধারণত দুধের মত সাদা ধরনের হয়।

  • স্তন মাঝে মাঝে রক্তের মত লাল হয়ে যায়।

  • স্তনের বোটা ভিতরেও ঢুকে যেতে পারে।

  • অনেকের স্তনের ভিতরে গোটা গোটা দেখা দেয়, শক্ত হয়ে যায় এবং স্তনের সাইজের পরিবর্তন হয়ে থাকে।


আপনি কি জানেন কেন স্তন ক্যান্সার হয়


মেয়েদের স্তনের কিছু কিছু কোষ স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি বেড়ে যায় এবং এই অস্বাভাবিকতার জন্য কোষগুলোর মাঝে বিভাজনের তৈরি হয়। এই বিভাজনের মধ্যদিয়েই টিউমার হয়। টিউমারগুলো আমাদের শরীরের রক্তনালির লসিকা ও অন্যান্য জায়গায় ছড়িয়ে পরে। টিউমারগুলোর এইভাবে ছড়িয়ে পরাকেই স্তন ক্যান্সার বলা হয়ে থাকে।




  • মেয়েদের ঋতুস্রাব বারো বছরের আগে শুরু হলে স্তন ক্যান্সারের ঝুকি থাকে।

  • কারো কারো ঋতুস্রাব দেরিতে বন্ধ হয় তারাও এই ক্যান্সারের ঝুকির মধ্যে থাকে।

  • তেজস্ক্রিয়তা স্তন ক্যান্সারের ঝুকি বহুগুণে বাড়িয়ে দেয়।

  • ফ্যামিলিতে এই ক্যান্সারের ইতিহাস থেকে থাকলে সেই পরিবারের মেয়ে সদস্যারা এই স্তন ক্যান্সারের ঝুকির মধ্যে থাকেন এবং তাদের ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি থাকে।

  • যারা অনেক বেশি দেরি করে সন্তান নিয়ে থাকেন তারাও অনেক বেশি ঝুকির মধ্যে থাকেন এবং যাদের কোন সন্তান নেই তাদের আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা ১০০ পারসেন্ট।

  • অতিরিক্ত ওজন ক্যান্সার হতে বেশি সাহায্য করে।

  • খাদ্যাভ্যাসের পরিবর্তনও স্তন ক্যান্সারের অন্যতম লক্ষণ।

  • অনেক মায়েরা বডি ফিট রাখার জন্য নিজের সন্তানকে বুকের দুধ দেন না তারাও ঝুকিতে আছেন।

  • তারা শাকসবজির পরিবর্তে নিয়মিত চর্বি জাতীয় খাবার খেয়ে থাকেন তাদের শতভাগ ঝুকি থাকে এই ক্যান্সার হওয়ার।


আমাদের সামাজিক মাধ্যমগুলো


টুইটার ফেসবুক








[ad_2]

Source link

Post a Comment

Previous Post Next Post