রিয়া নামের অর্থ কি

বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌপথ এক সপ্তাহেরও বেশি সময় বন্ধ থাকার পর এবার বিআইডব্লিউটিএ বিকল্প ঘাট খুলতে যাচ্ছে। শরীয়তপুরের জাজিরার সাত্তার মাদবর, মঙ্গল মাঝিরঘাটে ফেরি টার্মিনালের নির্মাণ কাজ প্রায় শেষের পথে। শুক্রবারের মধ্যে এটি চালু হওয়ার কথা রয়েছে।



ঘাট চালু হলে ফেরিগুলি পদ্মা সেতু এড়িয়ে যাবে এবং এই জলপথে দূরত্ব এবং সময় হ্রাস পাবে। বাস-ট্রাক ছাড়াও প্রাইভেট কার, অ্যাম্বুলেন্স এবং সরকারি যানবাহন নতুন ঘাট পার হতে পারবে।


বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ -পরিবহন ক

র্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) মতে, ঘাট নির্মাণ শেষ হওয়ার পর সারি সারি ফেরির একটি পন্টুন স্থাপন করা হবে। নৌপথ পরীক্ষা করতে বৃহস্পতিবার পরীক্ষামূলকভাবে একটি ফেরি চালানো হবে। এবং শুক্রবার, ফেরিতে যানবাহন পারাপার আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হবে।


ফেরিগুলি সাত্তার মাদবর, মঙ্গল মাঝিরঘাট থেকে ছেড়ে যাবে, পদ্মা সেতু এড়িয়ে যাবে এবং তার পাশ দিয়ে নেমে যাবে। এটি জলপথের দূরত্ব এবং সময় হ্রাস করবে।


বিআইডব্লিউটিএ সূত্রে জানা গেছে, মাদারীপুরের বাংলাবাজার এবং মুন্সীগঞ্জের শিমুলিয়ায় ১erry আগস্ট থেকে ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েছে। কারেন্টের তীব্রতা কম না হওয়া পর্যন্ত এই নৌপথ ফেরি ছাড়া থাকবে না। তবে জরুরি সেবা নিশ্চিত করতে বিআইডব্লিউটিএ শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলার মঙ্গল মাঝিরঘাট এলাকায় ২১ আগস্ট নতুন ফেরি টার্মিনাল নির্মাণ শুরু করেছে।


সাত্তার মাদবর, মঙ্গল মাঝির লঞ্চঘাট

-শরীয়তপুর সড়কের পদ্মা নদীর মাথায় বালু ভর্তি কিছু অংশ ভরাট হয়ে গেছে। সেখানে 100 ফুট লম্বা এবং 50 ফুট চওড়া ঘাট নির্মাণ করা হচ্ছে। বালু ভর্তি জিও-ব্যাগে বাঁশ, ইট ও বালি দিয়ে ঘাটটি তৈরি করা হয়েছে। ঘাটটি তৈরি করতে 50-60 লাখ টাকা খরচ হবে।


বিজ্ঞাপন


ঘাট নির্মাণের ঠিকাদার আব্দুস সামাদ হাওলাদার প্রথম আলোকে বলেন, ২১ আগস্ট থেকে ৫০ জন শ্রমিক কাজ করছেন। বুধবার রাতের মধ্যে ঘাটের নির্মাণ কাজ শেষ হবে বলে আশা করা হচ্ছে। শ্রমিকরা দিনরাত কাজ করে যাচ্ছে। বৃষ্টি না হলে রাতের মধ্যেই নির্মাণ কাজ শেষ হবে বলে তিনি আশাবাদী।


সাত্তার মাদবর, মঙ্গল মাঝিরঘাট-শিমুলিয়া নৌপথে বিআইডব্লিউটিএ এবং বিআইডব্লিউটিসি-র সংশ্লিষ্ট বিভাগ এবং জরিপ বিভাগ জরিপ করেছে। ফেরিগুলি জাজিরার নাওডোবা পদ্মা সেতুর চ্যানেল বরাবর চলবে। শিমুলিয়া সেই চ্যানেল দিয়ে লৌহজং টার্নিং দিয়ে যাতায়াত করবে। তারপর পদ্মা সেতু বরাবর ফেরিগুলো কমপক্ষে km কিমি চলবে।


বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌপথের দূরত্ব 

১০ কিমি। পার হতে 1 ঘন্টা 40 মিনিট থেকে 2 ঘন্টা সময় লেগেছে। সাত্তার মাদবর, মঙ্গল মাঝিরঘাট-শিমুলিয়া নৌপথের দূরত্ব 8 কিমি। ক্রসিং 1 ঘন্টা থেকে 1 ঘন্টা 20 মিনিট সময় লাগবে। নতুন ঘাটের জন্য একটি রো-রো ফেরি পন্টুন আনা হয়েছে। এই ঘাটে তিন থেকে চার কে ধরনের ফেরি চলাচল করবে।


বিআইডব্লিউটিএ কারিগরি সহকারী প্রকৌশলী। ফয়সাল ঘাট নির্মাণের তদারকি করছেন। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, যত দ্রুত সম্ভব মঙ্গল মাঝিরঘাট চালু করার নির্দেশনা রয়েছে। আজ, বৃহস্পতিবার পরীক্ষামূলকভাবে একটি ফেরি চলবে। শুক্রবার ঘাট থেকে ফেরি পরিষেবা শুরু করার লক্ষ্যে কাজ চলছে।


বিআইডব্লিউটিএর সমুদ্র সংরক্ষণ ও ব্যবস্থাপনা বিভাগের একজন সহকারী পরিচালক প্রথম আলোকে বলেন, পদ্মা সেতুর নিচের দিকে সাত্তার মাদবর, মঙ্গল মাঝিরঘাট-শিমুলিয়া নৌপথে ফেরি চলাচল করবে। পদ্মা সেতু চ্যানেল দিয়ে এখন লঞ্চ চলাচল করছে। ওই রুটে ফেরি চলবে। পদ্মা সেতু বরাবর ফেরিগুলো কমপক্ষে km কিমি চলবে।


বিআইডব্লিউটিএর প্রকৌশল বিভাগের 


নির্বাহী প্রকৌশলী (Dhakaাকা বিভাগ) মতিউল ইসলাম বলেন, "বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌপথ আট দিন ধরে বন্ধ রয়েছে।" মানুষ চরম ভোগান্তিতে পড়েছে। পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য, আমরা সাতবর মাদবর, মঙ্গল মাঝিরঘাটে একটি ফেরি টার্মিনাল নির্মাণ শুরু করেছি। কাজ শেষ পর্যায়ে। দু -একদিনের মধ্যে ঘাটটি চালু হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে ঘাট খোলার তারিখ ঠিক করা হবে।

Post a Comment

Previous Post Next Post